নিজস্ব প্রতিনিধি: প্রায় দেড়মাস বন্ধ থাকার পর আবার  খুলল বেলুড় মঠ। গত পয়লা জানুয়ারি থেকে বন্ধ ছিল বেলুড় মঠ। সকাল ৭টা থেকে ১১টা ও দুপুর সাড়ে ৩টে থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকবে মঠ। তবে কোভিড বিধি মেনে ঢুকতে হবে ভক্ত ও সাধারণ দর্শকদের।

মঠে সন্ধের আরতি দর্শন করা যাবে না। বন্ধ ভোগ বিতরণও। পরবর্তীকালে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে কোভিড বিধি শিথিল করা হবে মঠ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।

শিবরাত্রির দিন: শিবরাত্রি ১লা মার্চ । প্রথম-প্রহরের পুজোয় ভক্তরা উপস্থিত থাকতে পারবেন না ।

রামকৃষ্ণদেবের জন্মতিথি: রামকৃষ্ণদেবের জন্মতিথি ৪ঠা মার্চ।  এদিন বেলুড় মঠ ভক্ত ও দর্শনার্থীদের জন্য খোলা থাকবে : সকাল ৬.৩০‑১১.৩০  ও  বিকাল ৩.৩০‑৫.৩০ পর্যন্ত। ঐ দিনের অনুষ্ঠানগুলি এবং বিকালের ধর্মসভা ইউ-টিউব -এর মাধ্যমে সম্প্রচারিত হবে।

বেলুড় মঠের ওয়েবসাইটে ( https://belurmath.org ) অনুরোধ জানানো হয়েছে  –

**অনুগ্রহ করে মাস্ক পরুন এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন।

**প্রত্যেকেই কমপক্ষে ২ মিটার (৬ ফুট) দূরত্ব বজায় রাখুন।

**প্রবেশের সময় সমস্ত ভক্ত/দর্শকদের স্বাস্থ্য স্ক্রিনিং/থার্মাল স্ক্রিনিং করাতে হবে।

**শুধুমাত্র উপসর্গহীন (সরকার / ডব্লিউএইচও নির্দেশিকা অনুযায়ী) ভক্ত/দর্শনার্থীদের প্রাঙ্গনে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে।

**বড় লাগেজ / লাগেজ নিয়ে ঢোকার অনুমতি দেওয়া হবে না, শুধুমাত্র ছোট হাত ব্যাগ নেওয়া যেতে পারে।

**মঠ প্রাঙ্গনে ফটোগ্রাফি কঠোরভাবে নিষিদ্ধ।

**থুতু ফেলা কঠোরভাবে নিষিদ্ধ।

**দয়া করে ময়লা ফেলবেন না।

**ভক্তদের শুধুমাত্র শ্রী রামকৃষ্ণ মন্দির, শ্রী সারদা দেবী মন্দির, স্বামী বিবেকানন্দ মন্দির এবং স্বামী ব্রহ্মানন্দ মন্দির – এই চারটি মন্দির দেখার অনুমতি দেওয়া হবে।

**অনুগ্রহ করে শুধুমাত্র দাঁড়িয়ে প্রণাম করুন।

**মন্দিরে সাষ্টাঙ্গ প্রণাম বা বসে প্রণামের অনুমতি দেওয়া হবে না।

**মন্দিরে বসা ও ধ্যান করা যাবে না।

**মন্দিরের নির্দিষ্ট জায়গায় নৈবেদ্য রাখতে হবে।

**পুরাতন মন্দির এবং স্বামীজির কক্ষে যাওয়া পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত স্থগিত থাকবে।

**গঙ্গায় স্নান করার ক্ষেত্রে নিষেধ।

**পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত প্রসাদ বিতরণ স্থগিত থাকবে।